1. [email protected] : editor : Meraj Gazi
  2. [email protected] : admin :
  3. [email protected] : zeus :
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০১:১৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজবাড়ীতে বড় পর্দায় দেখানো হবে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বর্নাঢ্য আয়োজনে জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন বিদেশী পিস্তলসহ সন্ত্রাসী দুল্লা গ্রেফতার গ্লোবাল টেলিভিশন ভবনে সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানব বন্ধন বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত রাজবাড়ী সদরে ১০ কৃষক পেলো পাওয়ার টিলার চালিত সিডার সদর উপজেলা মাসিক আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও রাজবাড়ী ইসকন মন্দিরের প্রবেশ পথ খুলে দেওয়ার দাবিতে সাংবাদিক সম্মেলন সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণে আহতদের পাশে সংগীত শিল্পী ফারদিন পাংশায় স্বপরিবারে হত্যার উদ্যেশ্যে গভীর রতে বসত ঘরে অগ্নিসংযোগ

ভিজিএফ‘র চাল % ভাগাভাগির সুযোগ নেই: অনিয়ম হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে-উপজেলা নির্বাহী অফিসার

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২২ জুলাই, ২০২০
  • ৪৮৭ পঠিত

খন্দকার রবিউল ইসলাম, রাজবাড়ী টুডে: ঈদের আগে প্রতিবছরই গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক হতদরিদ্র লোকজনের জন্য ভিজিএফ এর মাধ্যমে চাল দেওয়া হয়। ইতো মধ্যেই রাজবাড়ী সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌর সভার জন্য ভিজিএফের চাল চেয়ারম্যানদের নামে উপ-বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যা আগামী ২৫/২৬/২৭/২৮ তারিখের মধ্যে বিভিন্ন ইউনিয়নে বিতরণ করা হবে।

কিন্তু এই চাল বিতরণে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সাথে সমন্বয় না করে ২০/১৫% ভাগাভি ও ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম ও কমিশন বাণিজ্যেও অভিযোগ করেন মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মী ও তৃণমূলের জনতিনিধিরা।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী গত ১৮ জুলাই দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মী ও ১৪টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের সাথে মতবিনিময় করেন।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাঈদ্দুজামান খান বলেন, রাজবাড়ী সদর উপজেলায় ১৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা আছে। আপনারা জানেন যে প্রতিবছরই ঈদের সময় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক হতদরিদ্র লোকজনের জন্য ভিজিএফ এর মাধ্যমে চাল দেওয়া হয়। রাজবাড়ী সদরে ১৪টি ইউনিয়ন আছে ইউনিয়ন গুলোতে অলরেডি আমরা ডিও দিয়েদিয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বরাবর এই ডিও দেওয়া হয়। ইউনিয়ন ভেদে ইউনিয়নের আকার ইউনিয়নের জনসংখ্যা দারিদ্রতার সুচোক। এগুলো ভেদে বিভিন্ন ইউনিয়নে বরাদ্ধ কমবেসি হয়। সবচে বেসি বরাদ্দ আছে, মিজানপুর ইউনিয়নে ২৮ মেট্রিক টন ও বসন্তপুর ইউনিয়নে ২০ মেট্রিক টন বরাদ্দ আছে। তাছাড়া অন্যন্য ইউনিয়ন গুলোতে ১৪ মেট্রিক টনের কম নেই। এই বরাদ্দটা আমরা উপ-বরাদ্দ দিয়ে দেই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের নামে।

এবং তারা আমাদের কে ইউনিয়নের যে গরীব হতদরিদ্র লোকদের একটি তালিকা তৈরি করে। এবং এই তালিতকা অনুযায়ী তাদের বিতরণ করতে হয়। এবং এখানে প্রতিটি ইউনিয়নের ২জন করে অফিসার দায়ীত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসিবে নিয়োগ করে দিয়েছি। যাতে সবচ্চ মনিটরিং করা যায়। আমরা নিজেরাও বিভিন্ন ইউনিয়নে ভিজিট করবো বিতরনের সময়। আমাদের এখানে উপজেলা চেয়ারম্যান আছেন তিনিও ভিজিট করবেন। যাতে সর্বচ্চ সচ্চতা এবং সর্বচ্চ ইমপাসশিয়ালী এই বিতরণ টা করা হয়। এবং আমাদের মুখ উজ্জল থাকে।

এমপি ২০% বা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ১৫% ভাগাভাগির কোন নিয়ম আছে কি না এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোন % অনুসারে আমরা বরাদ্দ দেই না। আমাদের যেটা নিয়ম আছে নিয়ম অনুসারেই করা হয়। এবং এখানে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের কাছে কিন্তু তার ইউনিয়নের পুরোটাই বরাদ্দ দিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইন্টানাল % বিষয়টা জানি না। তবে যদি কারো সুপারিশ থাকে এমপি মহোদয়ের যদি কোন নামের সুপারিশ থাকে এবং তিনি যদি পাওয়ার যোগ্য হয় সে ক্ষেত্রে কোন সমস্যা নেই সে পাইতে পারে। এখন হচ্ছে উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয় যদি কারো জন্য সুপারিশ করে সে লোক যতি গরীব হয় সে পেতে পারে। তবে অফিসিয়াল ভাবে % ভাগাভাগির কোন বিষয় নাই। আমরা উপ-বরাদদ্দ দিয়েছি উইপি চেয়ারম্যানদের কাছে। তারা আমাদেরকে তালিকা দিবে ঐ তালিকা অনুযায়ী যাচাই বাছাই করে, দায়ীত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিয়ে আমরা নিজেরা গিয়ে যাতে সুষ্ট বনটন হয় সে বিষয় নিশ্চত করবো। যে হেতু ইউপি চেয়ারম্যানদের কাছে দেওয়া হচ্ছে। যাতে তারা সর্বচ্চ সতর্কতার সাথে দেখে এবিষয়ে আমরা তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যখন ডিও দেওয়া হয়। তখন এই বিষয়ে অনেক গুলো নির্দেশনা দেওয়া হয়। যার কারনেই তারা সবাই জবাব দিহিতার মধ্যে আছে। ২৫,২৬,২৭,২৮ ৪দিনের মধ্যে ১৪টি ইউনিয়নে ভিজিএফ এর চাল বিতরণ সম্পুর্ণ করা হবে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী বলেন, সারাবিশ্ব আজ স্তম্ভিত। বড়বড় দেশ এবং করোনা ভাইরাসের কাছে পরাজিত । ইতিমধ্যে কয়েকজন নেতা ইন্তেকাল করেছেন এবং আরও যারা করোনা ভাইরাসে মারা গিয়েছেন আমি তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি । জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এবং সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগ,যুবলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের সবাই সম্মিলিতভাবে আমরা কাজ করে আসছি । করোনার শুরু থেকে অদ্যাবধি আমরা রাজবাড়ীতে অবস্থান করছি । আমরা দেখেছি ইতিমধ্যে সরকারি যে ত্রাণ রাজবাড়ীতে এসেছে তা কোঠা ভিত্তিক ভাগ করে দেওয়া হয় । কিন্তু আমার জানামতে মন্ত্রনালয়ের এমন কোন নির্দেশনা নাই । আমি আপ্রান চেষ্টা করেছি করোনা আক্রান্ত থেকে শুরু করে কোন অভাবগ্রস্থ অসহায় মানুষ ক্ষুদায় যেন কষ্ট না পায় সেজন্য আমরা মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়েছি । প্রত্যেকটা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি সেক্রেটারী এ ব্যাপারে কাজ করে যা্েচ্ছন । তিনি চেয়ারম্যানদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা দল থেকে নমিনেশন পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন । তাই দলের সবাইকে নিয়ে সুষ্টুভাবে প্রকৃত অসহায়দের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করবেন। ভাগাভাগির রাজনীতি করবেন না ।

এব্যাপারে সুলতানপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মিয়া বলেন, যে ত্রাণ আমরা ইউনিয়নের জন্য বরাদ্দ পাই তার মধ্যে থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান নেয় ১৫ (পনেরো) শতাংশ, সংসদ সদস্যর প্রতিনিধি নেয় ২০ (কুড়ি) শতাংশ এবং আমরা চেয়ারম্যান মেম্বারসহ পাই ৬৫ (পয়ষট্টি) শতাংশ । এভাবে ভাগ করে দেওয়া হয় । এখানে আমাদের কি করার আছে । আমাদের অবস্থানটা কোথায় আমরা নিজেরাই বুঝিনা ।

চন্দনী উইনয়নের চেয়ারম্যান একেএম সিরাজুল আলম চৌধুরী জানান, আমার ইউনিয়নে ১৪৮৫ জনের জন্য ভিজিএফ এর চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে থেকে সংসদ সদস্যর প্রতিনিধি ২০(কুড়ি) শতাংশ, উপজেলা চেয়ারম্যান নেয় ১৫ (পনেরো) শতাংশ, এবং আমরা চেয়ারম্যান মেম্বারসহ পাবো ৬৫ (পয়ষট্টি) শতাংশ। এভাবে ভাগ করে নিলে আমরাদের কিছুই করার থাকে না। স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের সাথে কোন সমন্বয় করা বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এমপির সাহেবের প্রতিনিধি হিসেবে জেলা পরিষদের সদস্য মোঃ আলাউদ্দিন সাহেবকে ২০% দেওয়ার কথা বলেছেন। কিন্তু ইউনিয়নের সভাপতি বা সাধারণ সম্পাদকদের কোন বিষয়ে তিনি বলেন নি। তবুও আমি নিজ যায়গা থেকেই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কে বলেছি ১০০জনের তালিকা দিতে। সত্যি বলতে কি রাজনীতির এমন বেড়াজালে পড়ে আমরা চেয়ারম্যানরা খুবই সমস্যার মধ্যে আছি।

আলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শওকত আলী বলেন ১৬ মেট্রিক টনের কিছু বেসি ভিজিএফ এর চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ১৬৯৮টি পরিবারের মধ্যে বিতরণ করা হবে। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনা অনুযায়ী নিয়ম মেনে আমরা এই বরাদ্দকৃত চাল বিতরণ করা করবো।

চন্দনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রব জানান, মোঃ আলাউদ্দিন শেখ ও আরজেন্ট ঢালীকে ২০% দিয়েছেন চেয়ারম্যান। কিন্তু আমাদের সাথে কোন সমন্বয় করা হয়নি। চেয়ারম্যান সিরাজুল আলম ১শ জনের তালিকা দিতে বলছেন। কিন্তু আমরা কোন তালিকা দেয়নি। আমরা বলছি ভাগাভাগি না করে যারা পাওয়ার যোগ্য দলমত নির্বিশেষে তাদের কে দেওয়া হোক। আমরা সহযোগিতা করবো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই জাতীয় আরো খবর
July 2022
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  
© All rights reserved © 2013 Todaybangla24
Theme Customized BY LatestNews